আমার নতুন ব্লোগ

সাক্ষ্যগ্রহণের ফাঁকে পরীক্ষা দিতে গেলেন মিন্নি

বরগুনার রিফাত শরীফ হত্যা মামলার প্রাপ্তবয়স্ক ১০ আসামির বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ চলছে বরগুনা জেলা ও দায়রা জজ আদালতে। সাক্ষ্যগ্রহণ চলাকালে পরীক্ষা থাকায় এ মামলার তিন আসামি পরীক্ষা দিতে আদালত থেকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন।

মঙ্গলবার (৫ জানুয়ারি) দুপুর দেড়টার দিকে বরফুনা জেলা ও দায়রা জজ আদালতে রিফাত হত্যা মামলাটি দেখা গেছে। রিফাতের তিন মামা মামলায় সাক্ষ্য দিয়েছেন। রিফাতের মা ডেইজি বেগম এবং চাচাত ভাই নুসরাত জাহান অনন্যা দুপুর ২ টায় বরগুনার শিশু আদালতে নাবালিকার বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দেন।

আদালত সূত্র জানায়, রিফাত হত্যা মামলার প্রাপ্ত বয়স্ক আসামি আল কাইয়ুম ওরফে রাব্বি আকান, আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি ও এমডি সি ডিগ্রি প্রথম বর্ষের পরীক্ষা চলছে। তাই সকাল একটায় একই সময় আদালতের অনুমতি নিয়ে মিনি তার বাবার সাথে বরগুনা সরকারী মহিলা কলেজ কেন্দ্রে পরীক্ষা দিতে উপস্থিত হন।

মামলার অপর দুই আসামি হলেন আল কাইয়ুম ওরফে রাব্বি আকান ও মো। সাগরকে পুলিশ ভ্যানে করে বরগুন জেলা কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। আদালত তাদের কারাগারে রাখার নির্দেশ দেওয়ায় তারা বরগুনা জেলা কারাগারের অভ্যন্তরে পরীক্ষায় অংশ নেবেন।

মিনির বাবা মো। মোজাম্মল হুসেন কিশোর বলেন, আজ মিনির একটি ট্রায়াল রয়েছে। বিষয়টি আদালতে জানানো হলে আদালত মিনিকে পরীক্ষায় অংশ নিতে অনুমতি দেয়। সুতরাং, মামলার কার্যক্রম চলাকালীন আদালতের অনুমতি নিয়ে মিন্নি বরগুনা সরকারী মহিলা কলেজ কেন্দ্রে পরীক্ষায় অংশ নিতে যান।

এদিকে, বড়গাঁও জেলা ও দায়রা জজ আদালতে এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত রিফাত হত্যা মামলা প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা অবধি দেখা ছিল। রিফাতের তিন মামা সহ তিন মামা আজ মামলায় সাক্ষ্য দিচ্ছেন। রিফাতের মা, ডেইজি বেগম এবং চাচাত ভাই নুসরাত জাহান অনন্যা দুপুর ২ টায় বরগুনার শিশু আদালতে নাবালিকার বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দেবেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.